রাজ-পরীর ‘মারামারি’ ঠেকাতে গিয়ে আহত! যা বললেন তমা

0
42

গত ঈদে আরফান নিশোর বিপরীতে ‘সুড়ঙ্গ’ সিনেমায় অভিনয় করে আলোচনায় আসেন অভিনেত্রী তমা মির্জা। রায়হান রাফি পরিচালিত সিনেমাটিতে তার নেতিবাচক অভিনয় সিনেপ্রেমীদের হৃদয়ে দাগ কেটেছে।

সম্প্রতি হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন এ অভিনেত্রী। একই হাসপাতালে একই দিনে ভর্তি হন শরীফুল রাজ ও পরীমণিও।

যে কারণে গুঞ্জন ওঠে, শুক্রবার রাজধানীর নিকেতনে এক নির্মাতার অফিসে মারামারি হয় রাজ-পরীমণির। এ তারকা দম্পতির মারামারি ঠেকাতে গিয়ে আহত হন তমা। এরপর ভর্তি হন হাসপাতালে।

তবে সেই গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়েছেন এ অভিনেত্রী। পাল্টা প্রশ্ন করলেন, কেউ কারও হাতে মার খেয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়ে কি চেকইন দেয়? আমি তো হাসপাতালে ঢুকেই সেটা করে সবাইকে জানিয়ে দিয়েছি।

তিনি জানালেন, কারও মার খেয়ে নয়, শুক্রবার জ্বর, কাশি, শ্বাসকষ্ট ও মাথা ব্যথা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

তমা মির্জা আরও বলেন, আমি সেই মেয়ে, যে স্বামীর হাতের মার খেয়ে ঘর ছেড়েছি। সেটার প্রকাশ্য প্রতিবাদ করার জন্য যা যা করা দরকার করেছি। তো সেই মেয়েটিকে অন্য কারও জামাই এসে মেরে চলে যাবে, আর আমি চুপচাপ হাসপাতালে শুয়ে কাঁদব, সেটা তো কল্পনাই করতে পারি না।

এদিকে হাত কেটে হাসপাতালে ভর্তি হন পরীমণিও। হাসপাতালের একাধিক সূত্র গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছে, শুক্রবার সন্ধ্যায় ভর্তির পর প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে পরীমনি বাসায় চলে যান। অন্যদিকে রাজের মাথায় মাথায় চারটি সেলাই পড়েছে। চিকিৎসা শেষে তিনিও তার বাসায় চলে গেছেন।

এ বিষয়ে তমার ভাষ্য, ‘আমার বক্তব্য স্পষ্ট, রাজ-পরীর মারামারির যে ঘটনার কথা বলা হচ্ছে, সেটার আশপাশেও আমি ছিলাম না। আর পরী আমাকে এ বিষয়ে কিছুই শেয়ার করেনি। ’