Monday, July 13, 2020
- Advertisement -
Home খেলাধুলা ৪০ বছর বয়সে হলেও জাতীয় দলে ফিরতে চান আশরাফুল!

৪০ বছর বয়সে হলেও জাতীয় দলে ফিরতে চান আশরাফুল!

চল্লিশ বছর বয়সে হলেও জাতীয় দলে ফিরতে চান বাংলাদেশ ক্রিকেটের একসময়ের নক্ষত্র ও সাবেক অধিনায়ক মুহাম্মদ আশরাফুল। জাতীয় দলে ফেরার জন্য তিনি হাল না ছেড়ে অপেক্ষা করতে চান বলেও জানান তিনি।

২০১৪ সালে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের দায়ে সাজা ভোগ করে মুহাম্মদ আশরাফুল। দীর্ঘ চার বছর মাঠের বাহিরে থেকে ২০১৮ সালের আগস্টে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার অনুমতি পান তিনি। কিন্তু অনুমতি পাওয়ার দুই বছর পেরিয়ে গেলেও ঘরোয়া ক্রিকেটে তেমন কোন চমক দেখাতে পারেননি এ ক্রিকেট নক্ষত্র। ফলে জাতীয় দলে ফেরার সুযোগও পাচ্ছেন না তিনি।

তবে হাল ছাড়ার পাত্র নন আশরাফুল। বয়সকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে তিনি এখনও স্বপ্ন দেখে যান জাতীয় দলে ফেরার। তিনি মনে করেন, বয়স ৪০ হয়ে গেলেও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলা সম্ভব। তাই তিনি হাল ছাড়তে চান না। বরং অপেক্ষা করতে চান নিজের সুযোগের। অথচ আর সপ্তাহ তিনেক পর তার বয়সের কাঁটা ছুঁয়ে ফেলবে ৩৬।

মঙ্গলবার (১৬ জুন) ক্রীড়া সাংবাদিক নোমান মোহাম্মদের ইউটিউব লাইভে এ আশার কথা জানিয়েছেন আশরাফুল। এক্ষেত্রে তিনি উদাহরণ হিসেবে নিচ্ছেন পাকিস্তানের অলরাউন্ডার শোয়েব মালিককে। যিনি ১৯৯৯ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট শুরু করে খেলে যাচ্ছেন এখনও।

আশরাফুল বলেন, ফিটনেস ঠিক থাকলে আরও ৩-৪ বছর চেষ্টা করব। যেহেতু আমি ব্যাটসম্যান, আর বিশ্ব ক্রিকেটের সবাইকে তো দেখছি, চল্লিশের পরও অনেকেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলছে। শোয়েব মালিকের কথা যদি ধরেন, ১৯৯৯ সালে ডেব্যু হয়েছিল, এখনও খেলছে।

তিনি বলেন, তার (শোয়েব মালিক) সাথের অনেকেই কোচ-নির্বাচক হয়ে গেছে। যেহেতু আমি খুব অল্প বয়সে, ১৭ বছরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট শুরু করেছি, আর যেহেতু আমি ব্যাটসম্যান, আরও তিন-চার বছর অপেক্ষা করব জাতীয় দলে ফিরতে।’

আশরাফুল জানান, ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টির বদলে টেস্ট দিয়েই জাতীয় দলে ফিরার বেশি সম্ভাবনা। যেহেতু বয়স ৩৫ পেরিয়ে গেছে, লংগার ভার্সন ক্রিকেটই বেশি ভালো হবে। যদি ঘরোয়া প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ভালো খেলতে পারি, যদি প্রচুর রান করতে পারি তবে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে ফিরতে পারবো।

- Advertisment -

সর্বশেষ