Saturday, September 19, 2020
- Advertisement -
Home ঢালিউড ১৫ বছর পূর্ণ করলো মাস্টারপিস সিনেমা "হাজার বছর ধরে"

১৫ বছর পূর্ণ করলো মাস্টারপিস সিনেমা “হাজার বছর ধরে”

২০০৫ সালে উপন্যাসিক ও নির্মাতা জহির রায়হানে নন্দিত উপন্যাস হাজার বছর ধরে অবলম্বনে নির্মিত। ছবিটি পরিচালনা করেছিলেন সুচন্দা।

মকবুলের মৃত্যুর কয়দিন পর টুনি বাড়ির সবার কাছ থেকে বিদায় নিয়ে বাপের বাড়ির উদ্দেশে রওনা দিলো।মন্তু টুনিকে নিয়ে ভাটার স্রোতে নৌকা ভাসিয়ে দিলো। সেই নৌকা,যাতে করে মন্তু টুনিকে নিয়ে এসেছিলো তার বাপের বাড়ি থেকে। শান্তির হাট দেখে মন্তু সেখানে নৌকা ভেড়ানোর চেষ্টা করে। মন্তু জানায়, সে নামবে ওখানে, হাজিকে বললে মোল্লা ডেকে তাদের বিয়ের একটা বন্দোবস্ত করে দিবে। কথাটা বলবার সময় মন্তুর গলাটা অাবেগে থরথর করে কাঁপে।কিন্তু টুনি সায় দেয়না মন্তুর এ প্রস্তাবে।সে কেবল ফিসফিস করে বলে,না তা অার অয় না মিয়া। তা অয় না।

কথাটা বলতে গিয়ে ডুকরে কেঁদে ওঠে টুনি।টুনি অার মন্তুর জীবনে যে ভালোবাসার সম্পর্ক ছিলো, তা পরিণতি পায়নি। মন্তু বিয়ে করেছে অাম্বিয়াকে। তাদের একটি সন্তানও অাছে। অনেক বছর হলো টুনির সাথে দেখা হয়না। বুড়ো মকবুল, অাবুল, সুরত অালী সবাই পরপারে চলে গেছে। হীরনের বার দুয়েক বিয়ে হয়েছিলো, দুইবারই তালাক হয়ে গেছে। এখন সে বুড়ো মকবুল ঘরে থাকে।মন্তু চেষ্টা করছে তাকে অার একটি ভাল বিয়ে দেবার।কারণ এখন সে-ই বাড়ির কর্তা। সবাই মরে যায় রেখে যায় উত্তরাধিকার।যেমন সুরত অালী তার ছেলেকে রেখে গেছে, অার দিয়ে গেছে পুঁথি পড়ার চমৎকার গুণ।মকবুল নেই, কিন্তু হীরণ রয়েছে। একদিন হয়তো মন্তুও থাকবে না, কিন্তু তাদের উত্তরাধিকার থাকবে। এই দিন থাকবে না, অন্য দিন এসে যাবে। এই সকল মানুষ থাকবে না, অন্য মানুষেরা এসে পৃথিবীতে বসবাস করতে শুরু করবে। হাজার বছর ধরে পৃথিবী এভাবেই চলেছে, হয়তো চলবে অারো হাজার বছর।
রাত বাড়ছে।
হাজার বছরের পুরনো সেই রাত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

সর্বশেষ