Sunday, November 29, 2020
- Advertisement -
Home টালিউড স্টারের ছেলে স্টার হলেই নেপোটিজম হয়? প্রশ্ন রুদ্রনীলের

স্টারের ছেলে স্টার হলেই নেপোটিজম হয়? প্রশ্ন রুদ্রনীলের

আনিফা আরশি:

নেপোটিজম ও স্বজনপোষণ বিতর্কে মুখ খুললেন রুদ্রনীল ঘোষ। বুঝিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলেন, কেবল বিনোদন জগতেই নয়, সর্বত্র রয়েছে নেপোটিজম।

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর উস্কে দিয়েছে বিনোদন জগতের নেপোটিজম বিতর্ক। তা নিয়ে উত্তাল সোশাল মিডিয়া। সেই ঢেউ আছড়ে পড়েছে টলিউডেও। এক-আধজন প্রশ্ন করতে শুরু করেছিলেন, বাংলা ইন্ডাস্ট্রিতে নেপোটিজম বা ফেভারিটিজম নেই? আর সেই তর্কেই ভস্মে ঘি ঢালার কাজ করেছে শ্রীলেখা মিত্রের একটি সাম্প্রতিক ভিডিও।

অবশেষে নপো়টিজম নিয়ে মুখ খুললেন অভিনেতা রুদ্রনীল ঘোষ। খানিকটা বিদ্রূপের ভঙ্গিতেই বললেন, ”সব জীবিকায় আমি আপনি একটু আধটু নেপো।” চারিদিকের বিনোদন জগতের স্বজনপোষণ ও নেপোটিজম নিয়ে যখন চর্চা তুঙ্গে, ঠিক সেই সময়েই রুদ্রনীলের কলম আয়না দেখানোর চেষ্টা করল। একটি ভিডিয়োয় তিনি বলেছেন, নোপোটিজম সব জায়গায় রয়েছে। উকিলের ছেলে উকিল হলে, কিংবা শিক্ষকের ছেলে শিক্ষক হলে, তাঁরা কি সব ক্ষেত্রে কোনও সাহায্য ছাড়াই এগিয়ে যান? যদি তা নাই হয়, তাহলে তারকার ছেলে তারকা হলে এত কথা হবে কেন?

তাঁর স্পষ্ট কথা, কোনও অভিনেতাকে তারকা তৈরি করে তাঁর দক্ষতা, যদি নেপোটিজমই হত তাহলে অভিষেক বচ্চনও সুপারস্টার হতেন। নেটিজেনদের আত্মসমালোচনা করতে অনুরোধ করেছেন অভিনেতা। প্রসঙ্গত, বেশ কয়েকদিন ধরে বিভিন্ন ইস্যুতে কথা বলছেন রুদ্রনীল। মানুষের সমর্থনও পাচ্ছেন।

বেশ কিছুদিন আগে চর্চায় এসেছিল তাঁর আরও একটি ভিডিও, ‘দাদা আমি সাতে পাঁচে থাকি না’। চারপাশে মুখোশধারী সুবিধাভোগী মানুষের উদ্দেশে এই কথাগুলি বলেছিলেন তিনি। লিখেছিলেন, ‘দাদা আমি সাতে পাঁচে থাকি না, যে যা করে দেখি ভাই, সুবিধেটা নিয়ে যাই, কোনোদিন প্রকাশ্যে আসি না’। এভাবেই অভিনেতার উপস্থাপনায় একে একে কখনও মধ্যবিত্তের যন্ত্রণা, তো কখনও নেপোটিজমের মতো প্রসঙ্গ সামনে আসে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

সর্বশেষ

ঢাকায় ফিরলো ‘আয়না’ চলচ্চিত্রের টিম

1
আনিফা আরশি: গুণী চলচ্চিত্র নির্মাতা মনতাজুর রহমান আকবরের নতুন সিনেমা ‘আয়না’। গত ১৪ই অক্টোবর থেকে ধামরাই শুরু হয়েছিলো শুটিং। মোহনা মুভিজ এর ব্যানারে...