Monday, September 28, 2020
- Advertisement -
Home টেলিভিশন সৃজিতকে ছাড়াই কাটল মিথিলার ঈদ !

সৃজিতকে ছাড়াই কাটল মিথিলার ঈদ !

কলকাতার চলচ্চিত্র নির্মাতা সৃজিত মুখার্জীর সঙ্গে বিয়ের পর বাংলাদেশি অভিনেত্রী ও সমাজকর্মী রাফিয়াত রশীদ মিথিলার প্রথম জন্মদিন ছিল সোমবার। সঙ্গে আবার ঈদও। দুটি বিশেষ মুহূর্ত একই দিনে। বিশেষ করে, বিয়ের পরের প্রথম জন্মদিনকে ঘিরে কত কিছুই না পরিকল্পনা ছিল মিথিলার। কিন্তু সে সব কিছুই হয়নি। গভীর অসুখে ভুগছে পৃথিবী। সেই সঙ্গে প্রাকৃতিক বিপর্যয়। উৎসবও বাদ পড়েছে তার স্বাভাবিক ছন্দ থেকে।

তাই দূর থেকেই মিথিলার জন্য জন্মদিনের শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা পাঠান তার দ্বিতীয় স্বামী সৃজিত মুখার্জী। নিজের টুইটারে তিনি হিন্দিতে লেখেন, ‘কুছ দিন ইস তরফ হ্যায় জিনা’। উপহার তেমন কিছুই পাঠাতে পারেননি। তবে কিছুদিন আগে তিনি মিথিলাকে একটি জামদানি শাড়ি উপহার দিয়েছিলেন। জন্মদিন আর ঈদের সন্ধ্যায় মিথিলা সেটাই পরেছিলেন। এছাড়া মেয়ে আইরা গান গেয়ে ভরিয়ে তোলে মায়ের ঈদ আর জন্মদিন।

একসঙ্গে দুটি বিশেষ দিন কাটাতে পেরে ভীষণ খুশি ছোট্ট আইরা। তবে মিথিলার মন ভারী ছিল সৃজিত কাছে না থাকায়। ঈদের দিন বাড়িতেই খাওয়া দাওয়ার আয়োজন করেছিলেন তিনি। করোনার কারণে এ বছর তিনি কাউকে দাওয়াত করেননি। তবে বিয়ের পর প্রথম ঈদ ও জন্মদিন ছিল বলে অনেক আত্মীয় ও বন্ধুদের বাড়িতে তার দাওয়াত ছিল। কিন্তু সৃজিতকে ছাড়া কোথাও যাননি। মেয়ে আর পরিবারকে সঙ্গে নিয়েই তিনি কাটান একসঙ্গে দুটি বিশেষ দিন।

বাংলাদেশ ও ভারতজুড়ে লকডাউন ঘোষণার কিছু দিন আগে থেকেই দুজন দুই দেশে আটকে আছেন। মিথিলা পারছেন না কলকাতায় যেতে, সৃজিতও পারছেন না বাংলাদেশে আসতে। বিয়ের পর সুইজারল্যান্ডে হানিমুন সেরে সৃজিত উড়ে গিয়েছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকায় তার ‘ফেলুদা’ ছবির শুটিংয়ে। মিথিলা ফিরে এসেছিলেন বাংলাদেশে। কথা ছিল, কয়েকদিন বাদেই মিথিলাও দক্ষিণ আফ্রিকায় সৃজিতের সঙ্গে যোগ দেবেন।

কিন্তু তার মাঝেই করোনার হানা, ঘোষণা হয় লকডাউন। বাংলাদেশ-ভারত দুই দেশেই বিমান পরিষেবা বন্ধ হয়ে যায়। ফলে দক্ষিণ আফ্রিকা তো দূরে, মিথিলার কলকাতায় যাওয়াই বন্ধ হয়ে যায়। অন্যদিকে সৃজিত তার শুটিং টিম নিয়ে বিশেষ ফ্লাইটে ভারতে ফিরতে পারলেও বাংলাদেশে স্ত্রী মিথিলার কাছে আসতে পারেননি আজও। কবে পারবেন তারও কোনো নিশ্চয়তা নেই। সুদিনের অপেক্ষায় আছেন দুজনেই।

- Advertisment -

সর্বশেষ