Thursday, October 22, 2020
- Advertisement -
Home ঢালিউড রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলা হতে পারে চলচ্চিত্র পরিচালক দেলোয়ার জাহান ঝন্টুর বিরুদ্ধে

রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলা হতে পারে চলচ্চিত্র পরিচালক দেলোয়ার জাহান ঝন্টুর বিরুদ্ধে

আনিফা আরশি:

চলচ্চিত্র নির্মাতা দেলোয়ার জাহান ঝন্টুর বিরুদ্ধে ইতিহাস বিকৃতির অভিযোগ এনে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন এটিএম মাকসুদুল হক ইমু, এমনকি পরবর্তীতে হতে পারে রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলা।
দেলোয়ার জাহান ঝন্টু পরিচালিত ‘বীর সৈনিক’ সিনেমায় মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃত করা হয়েছে বলে তিনি অভিযোগ করেছেন। উল্লেখ্য পরিচালক নিজেই সিনেমাটির চিত্রনাট্য রচয়িতা এবং প্রযোজক।

সিনেমাটিতে কোথাও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাম উল্লেখ করা হয়নি এবং মেজর জিয়াউর রহমান স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছেন বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এজন্য সিনেমাটির প্রচার ও প্রদর্শন স্থগিত চেয়েছেন ইমু। তিনি মুক্তিযোদ্ধার সন্তান।

ইমু বলেন, ‘‘বীর সৈনিক’ সিনেমার কোথাও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাম উল্লেখ করা হয়নি। শুধু তাই নয়, মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক এই সিনেমার কোথাও ৭ মার্চের উল্লেখ নেই। এসএস মাল্টিমিডিয়ার ইউটিউবে সিনেমাটি প্রকাশ করা হয়েছে। সিনেমায় অভিনেতা যখন ৭ মার্চের কথা বলেন, ঠিক সেখান থেকেই কিছু অংশ কেটে ফেলা হয়েছে- যা স্পষ্ট দৃশ্যমান এবং উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।’
ইমু প্রশ্ন রেখে বলেন, ‘‘১৯৭১ সালে ৭ মার্চের কী কোনো গুরুত্ব ছিল না? নাকি ৭ মার্চ না এসেই হঠাৎ করে ২৬ মার্চ এসেছিল? এই সিনেমার সবচেয়ে বিকৃত ও বাজে দৃশ্য হলো, একটি জায়গায় অভিনেতা বলছেন— ‘চিটাগাং রেডিওতে আমাদের বাঙালি মেজর জিয়াউর রহমান স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছেন।’ এর মানে পরিচালক বলতে চাইছেন— ‘স্বাধীনতার ঘোষক জিয়া’! এটা কি ইতিহাসের বিকৃতি নয়?’’

ইমু এ প্রসঙ্গে জানতে এসএস মাল্টিমিডিয়ার কর্ণধার, চলচ্চিত্র নির্মাতা, প্রযোজক এম এন ইস্পাহানীর সঙ্গে সাক্ষাত করেন এবং তাকে বিতর্কিত অংশটুকু সিনেমা থেকে বাদ দিয়ে ইউটিউবে পুনরায় মুক্তি দেওয়ার অনুরোধ করেন। কিন্তু তা করা হয়নি। সিনেমাটির এই বিভ্রান্তিমূলক অংশের জন্য ভবিষ্যৎ প্রজন্মসহ তরুণ প্রজন্ম মারাত্মকভাবে বিভ্রান্তির শিকার হবে বলে মনে করেন এই মুক্তিযোদ্ধার সন্তান।

সুত্র/রাইজিং বিডি

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

সর্বশেষ