Tuesday, August 11, 2020
- Advertisement -
Home ঢালিউড যারা বয়কট করেছে তারা অশিক্ষিত,জায়েদ খানকে বয়কট প্রসঙ্গে নায়ক ফারুক (ভিডিওসহ)!

যারা বয়কট করেছে তারা অশিক্ষিত,জায়েদ খানকে বয়কট প্রসঙ্গে নায়ক ফারুক (ভিডিওসহ)!

করোনাকালে চলচ্চিত্র স্বার্থবিরোধী কর্মকাণ্ডে যুক্ত থাকার অভিযোগে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানকে বয়কট করল চলচ্চিত্র প্রযোজক-পরিবেশক সমিতি, পরিচালক সমিতিসহ ১৮টি সংগঠন মিলে তৈরি ‘চলচ্চিত্র পরিবার’।

গত বুধবার (১৫ জুলাই)  এফডিসিতে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সংগঠনগুলোর নেতারা একযোগে তাকে বয়কটের ঘোষণা দেন। অন্যদিকে সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর আগে থেকে নিষিদ্ধ রয়েছেন বলে জানিয়েছেন নেতারা। যদিও এ পরিবারের মধ্যে শিল্পী সমিতি এক সময় অন্তর্ভুক্ত থাকলেও ১৫ জুলাই তাদের সম্মেলনে ডাকা হয়নি।

চলমান এই করোনা সংকটের কারণে গত পাঁচ মাস ধরে চলচ্চিত্রের সকল কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। ঠিক এই সময়ে জায়েদ খানকে সিদ্ধান্ত হওয়ার বিষয়টি  মেনে নিতে পারছেন না চলচ্চিত্রের সিনিয়র শিল্পীরা। বিষয়টি নিয়ে কথা বলেছেন নায়ক আকবর হোসেন পাঠান ফারুক।

সম্প্রতি একটি গণমাধ্যমে লাইভ অনুষ্ঠানে এসে মিয়া ভাই খ্যাত এই নায়ক বলেন,‘একটা কথা বলতেই হয় শিল্পীদের অবাঞ্ছিত করার ক্ষমতা পৃথিবীর কারও নেই। শিল্পীরা তাদের নিজস্ব পৃথিবী তৈরি করেন।সেই পৃথিবীতে বাস করেন।তারা মনে প্রাণে ভাবে এই গোটা পৃথিবীরটি তাদের। তাদের কোনো বর্ডার নেই। যারা বলেন শিল্পীদের বয়কট করেছি তাদের মতো মূর্খ অশিক্ষিত লোক পৃথিবীর কোনো ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে থাকা উচিত নয় বলে আমি মনে করি। এই যে শিল্পী সমিতিতে ঢিলা-ঢেলি যেটা হচ্ছে।আমি যাদের দেখলাম তারা বড়-বড় কথা বলে থাকেন, যে আমার বর্তমান সরকারের হয়ে কাজ করছি। আমি তাদের একটা প্রশ্ন করতে চাই তারা কোন কাজটা করেছেন বলতে পারবেন। পারবেন না।তাদের ওখানে যারা আছেন, তাদের কথাবার্তা শুনে এই সময় মনে হয়েছে তারা কি পাগল হয়ে গেলো নাকি। এমনিতেই আমাদের ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির অবস্থা খারাপ। আর অনেকে খাওয়ার পয়সা নেই,যাদের নিজের বাড়ি নেই ঢাকায় তাদের বাড়ি দেওয়ারও পয়সা নেই, লজ্জায় কাউকে বলতে পারেনা।তাদের ঘরে ঘরে যদি খাবার পৌঁছে দিয়ে থাকে,আমি যাকে নটি বলি সেই ছেলেটা করেছে।সেটা জায়েদ,মিশা করেছে।এই গ্রুপটা মিলে মিশে সামনের মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করে যাচ্ছে প্রতিনিয়তই।যেখানে ডিপজলের কথা বলতে চলে আছে ডিপজলের কি টাকার  খনি আছে নাকি। আছে মানবতার খনি। তারপর রুবেলসহ বর্তমান কমিটির সবাই মিলে-মিশে কাজ করছে। আরে ভাই ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি তো শেষ এখন বাঁচাতে মিলে মিশে কাজ করোনা।

তিনি আরও বলেন,আমার মনে হয় তাদের এই সিন্ধান্ত সঠিক না।যদি কেউ বলে শিল্পীকে বয়কট করলাম তার মতো বোকা পৃথিবীতে নেই।কারণ যারা বয়কট করছে তারা তো ছবি বানাই না।শিল্পীরা বয়কটকে ভয় পায়না।আমি সিনেমাকে বাঁচাতে ৭/৮ সিনেমা প্রযোজনা করেছি শুধু মাত্র সিনেমাকে বাঁচাতে,এমনকি আমি হল করেছি।

উল্লেখ্য,বাংলাদেশের সিনেমা শিল্পকে যারা সমৃদ্ধ করেছেন-নায়ক ফারুক তাদের একজন। সুজন সখী, গোলাপী এখন ট্রেনে, সারেং বউ, লাঠিয়াল, নয়নমণি, মিয়াভাই, আলোর মিছিল-অসংখ্য আলোচিত সিনেমার নায়ক ফারুক। তার নায়ক জীবনে এদেশের শীর্ষ সব নায়িকারা অভিনয় করেছেন। অভিনয়ের স্বীকৃতি হিসেবে পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার এবং আজীবন সম্মাননা।অভিনেতা ছাড়া ঢাকা-১০ আসনের একজন সংসদ সদস্যও তিনি। ইন্ডাস্ট্রি তো শেষ এই সময় এক সাথে কাজ না করে এতো কাঁদা ছুঁড়া ছুড়ি কেনো’রে ভাই।
ভিডিও-

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

সর্বশেষ

মেজর সিনহা হত্যায় ফেঁসে যেতে পারেন অভিনেতা ইলিয়াস কোবরা

0
সেনাবাহিনীর অবসারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মেজর সিনহা হত্যাকান্ডে অন্যতম আসামী ওসি প্রদীপ কুমারকে যখন জিজ্ঞাসাবাদ চলছে তখন জমজমাটের অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে চাঞ্চল্যকার তথ্য। এই মর্মান্তিক ঘটনার...