Saturday, July 4, 2020
- Advertisement -
Home বলিউড বলিউডের সবচেয়ে ব্যয়বহুল ১০টি বিবাহ-বিচ্ছেদ

বলিউডের সবচেয়ে ব্যয়বহুল ১০টি বিবাহ-বিচ্ছেদ

আনিফা আরশি:

আমরা বলিউড সিনেমায় হ্যাপি এন্ডিং বা সুখী সমাপ্তি দেখতেই অভ্যস্ত, যেখানে নায়কের সাথে নায়িকার বিয়ে হয় এবং তারপর তারা সুখে শান্তিতে বসবাস করতে থাকে। কিন্তু সেলিব্রিটিদের বাস্তব জীবনে এমনটা সবসময় হয় না। বলিউডে এরকম অনেক উদাহরণ রয়েছে, যেখানে সেলিব্রিটি দম্পতিদের বিবাহ-বিচ্ছেদ হয় এবং তারা একে অপরের থেকে আলাদা হয়ে যায়। বলিউড তারকাদের বিয়ের অনুষ্ঠান যেরকম খরচ-সাপেক্ষ ও জাঁক-জমক সহ হয়, সেরকমই তাদের বিবাহ বিচ্ছেদের সময় স্বামীদের বহন করতে হয় বেশ মোটা অঙ্কের স্ত্রী-র ভরণ-পোষণের টাকা। আজ আমরা এরকমই ১০ জন সেলিব্রিটির কথা বলব, যাদের বিবাহ-বিচ্ছেদের সময় স্ত্রী-র খোরপোশের দাবি মেটাতে গিয়ে খরচ হয় বেশ মোটা অঙ্কের টাকা ।

আসুন দেখে নেওয়া যাক সেই সমস্ত বলিউড দম্পতিদের যাদের বিবাহ-বিচ্ছেদ যথেষ্ঠ ব্যয়বহুল ছিল।১. ঋত্বিক রোশন এবং সুজান খান
বলিউডের অন্যতম জনপ্রিয় যুগলের বিবাহ জীবনের ইতিটা মোটেই আনন্দদায়ক ছিল না। সূত্র অনুযায়ী সুজান খোরপোশ বাবদ প্রায় ৪০০ কোটি টাকার দাবি করেন ২০১৪ সালে তাদের বিবাহ-বিচ্ছেদের সময়। ঋত্বিক তাকে ৩৮০ কোটি টাকা দেন।২. করিশ্মা কাপুর ও সুজয় কাপুর
২০১৪ সালে তারা বিবাহ বিচ্ছেদের আর্জি জানান এবং ২০১৬-র মে মাসে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। রিপোর্ট অনুযায়ী তাদের সন্তাদের সমস্ত খরচ সুজয়কেই বহন করতে হবে। করিশ্মার উকিল জানিয়েছিলেন, “করিশ্মা তার শ্বশুরবাড়ি পুরোটাই পাবেন এবং সুজয়কে তাদের সন্তানদের জন্য ১৪ কোটি টাকার বন্ড কিনে দিতে হবে, যেটা থেকে প্রতি মাসে ১০ লাখ টাকা সুদ পাওয়া যাবে।”৩. ফারহান আখতার এবং অধুনা ভবানি
১৬ বছর একসাথে বিবাহ জীবন কাটানোর পর ২০১৭ সালে তাদের ডিভোর্স হয়। সূত্র মোতাবেক, ফারহান মাসিক খোরপোশ দেওয়ার বদলে এককালীন খোরপোশ দেন। পাশাপাশি অধুনা তাদের দশ হাজার স্কোয়ার ফিটের ব্যান্ডস্ট্যান্ডের বাংলো (Vipassana) নিজের কাছে রাখার কথা বলেন। তাদের সন্তানদের জন্যও ফারহানকে বেশ ভালো রকম টাকা খরচ করতে হয়। তাদের সন্তান অধুনার তত্ত্বাবধানেই থাকে এবং ফারহান ইচ্ছে করলে তাদের সাথে দেখা করতে পারে।৪. আমির খান ও রীনা দত্ত
বাবা-মা’র বিরুদ্ধে গিয়ে তারা একে অপরকে বিয়ে করেন। তাদের দুজনের ডিভোর্স হয় আমিরের উদাসীনতার জন্য। কি পরিমাণ টাকা খোরপোশ বাবদ দেওয়া হয়েছিল সেই খবর প্রকাশ্যে না এলেও, সেটি বেশ মোটা অঙ্কের টাকা ছিল।৫. সঈফ আলি খান এবং অমৃতা সিং
তাদের দুজনের বয়সের বিশাল অন্তর ছিল ১৩ বছরের। আশ্চর্য্যজনকভাবে তাদের বিয়েও টিকেছিল ১৩ বছর। ডিভোর্সের পর অমৃতা মোটা অঙ্কের খোরপোশ দাবি। এই সম্বন্ধে পুরনো এক সাক্ষাৎকারে সঈফ জানান, “আমি অমৃতাকে ৫ কোটি টাকার মত দেব। আপাতত ওকে ২.৫ কোটি টাকা দিয়েছি। এরপর প্রতিমাসে ১ লাখ করে টাকা দেব যতদিন না আমাদের সন্তান ১৮ বছরের হয়। আমি শাহরুখ খান নই, একসাথে এত টাকা দিতে পারবো না। তবে মরার আগে অবধি আমি সমস্ত টাকা দিয়ে দেব।”৬. সঞ্জয় দত্ত ও রিয়া পিল্লাই
যদিও রিয়া ছিলেন সঞ্জয় দত্তের দ্বিতীয় স্ত্রী, তিনি তাকে অনেক ভালবাসতেন। উপরন্তু, এটা বলা হয় যে সঞ্জু এই বিচ্ছেদের জন্য দোষী না কিন্তু তিনি সর্বাধিক ভোগেন। রিপোর্ট অনুযায়ী, সঞ্জয়কে রিয়ার সমস্ত বিল মেটাতে হত যতক্ষণ না তাদের আনুষ্ঠানিকভাবে বিচ্ছেদ হয়। পাশাপাশি, তিনি ৮ কোটি টাকার খোরপোশ দেন এবং সাথে একটি বিলাসবহুল গাড়িও দেন।৭. আদিত্য চোপড়া এবং পায়েল খান্না
রানী মুখার্জী এবং আদিত্য এখন সুখী দম্পতি। কিন্তু অনেকেই জানেন না, এর জন্য আদিত্যকে কতটা খরচ করতে হয়েছিল। আদিত্যর প্রথম স্ত্রী পায়েল তার ছোটোবেলার প্রেমিকা ছিল। কিন্তু তাদের সম্পর্কের দিন দিন অবনতি হয় এবং তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। ডিভোর্স হতে অনেক সময় লেগেছিল কারণ পায়েল বেশ মোটা অঙ্কের খোরপোশ দাবি করেছিল। যদিও খোরপোশের মূল্য প্রকাশ পায়নি, তবুও তা আনুমাণিক ৫০ কোটি হবেই।৮. প্রভু দেবা ও রামলাথ
বর্তমানে প্রভুদেবা বলিউডের বিখ্যাত ড্যান্সার এবং কোরিওগ্রাফারদের মধ্যে একজন। তাদের দুজনের দু’টি সন্তানও রয়েছে। তাদের বিবাহ-বিচ্ছেদ সম্পন্ন হয় ১০ লাখ টাকার খোরপোশের মাধ্যমে। পাশাপাশি তিনি প্রাক্তন স্ত্রীকে দু’টি দামি গাড়ি দেন এবং তার নামে ২০-২৫ কোটি টাকার সম্পত্তি করে দেন।৯. অনুরাগ কাশ্যপ ও কাল্কি কাকেলান

বলিউডের পরিচালক অনুরাগের সাথে কাল্কির প্রথম দেখা হয় “দেভ ডি” সিনেমার সেটে। তাদের ২০১১ সালে বিয়ে হয়। কিন্তু ২০১৫ সালে তাদের বিবাহ-বিচ্ছেদের ঘটনা সামনে আসে এবং কাল্কি বিপুল পরিমাণ খোরপোশ দাবি করেন। অনুরাগের বোম্বে ভেলভেট বক্স অফিসে ব্যাপকভাবে মুখ থুবড়ে পড়াই কাল্কি সামান্য পরিমাণ খোরপোশ নিতে রাজি হয়ে যান। তবে সেই টাকার পরিমাণও যথেষ্ঠ বেশিই ছিল।১০. রিয়া পিল্লাই ও লিয়েন্ডার পেজ
রিয়া এবং লিয়ান্ডারেরও বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। সঞ্জয়ের মত চুপচাপ বিবাহ বিচ্ছেদ হয়নি এটি। রিয়ার চাহিদার কথা তার নোংরা মনকে তুলে ধরে মিডিয়ার সামনে। রিয়া প্রতি মাসে ৪ লাখ টাকা দাবি করেন লিয়েন্ডারের থেকে, তার মধ্যে ৩ লাখ টাকা নিজের জন্য এবং বাকি ৯০ হাজার টাকা তাদের মেয়ের পড়াশোনার জন্য।
আপনি কি এরকম কোনো সেলিব্রিটি দম্পতির ব্যয়বহুল বিবাহ-বিচ্ছেদ সম্পর্কে জানেন? তাহলে কমেন্ট করে জানান।

সুত্র/এএলকেবিমিডিয়া।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

সর্বশেষ

নেপোটিজমের জোরও তাঁদের ক্যারিয়ার বাঁচাতে পারেনি!

0
বলিউডে অভিনয় শিল্পীদের ‍উত্থানের স্পষ্ট দুটি বিভাজন আছে। প্রথমটা খুব কঠিন। প্রতিভা যদি থাকে, পরিশ্রম