Friday, September 18, 2020
- Advertisement -
Home ঢালিউড নায়িকা মুনমুনের লাইভে এসে ক্ষমাপ্রার্থনা (ভিডিও-সহ)

নায়িকা মুনমুনের লাইভে এসে ক্ষমাপ্রার্থনা (ভিডিও-সহ)

আনিফা আরশি:

সম্প্রতি একসময়ের আলোচিত চিত্রনায়িকা মুনমুন একটি নাচের ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। আর ওই ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে তাদেরকে নিয়ে চর্চা।

ভিডিওটিতে দেখা যায়, টাঙ্গাইল জেলার সখীপুরে মসজিদের সামনে নাচের আসর বসানো হয়।সেখানে নাচতে দেখা গেছে চিত্রনায়িকা মুনমুনকে।এরপর সেই নাচের ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পর ব্যাপক সমালোচনা মুখে পড়তে হয়েছে তাকে।

বিষয়টি নিয়ে চিত্রনায়িকা মুনমুনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি  বলেন,নাচের ভিডিওতে সাইনবোর্ড যুক্ত যে ঘরটিকে মসজিদ বলা হচ্ছে, সেটি আসলে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত একটি মসজিদ। এটির প্রায় পুরোটাই বন্যায় ভেঙে গেছে। সামনের অংশে তাই সাইনবোর্ড লাগিয়ে রাখা হয়েছে। ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ার পর আমি সখীপুর পৌরসভার কাউন্সিলর মিল্টন সাহেবের সঙ্গে কথা বলেছি। উনিই আমাকে ওই দিন দাওয়াত করে নৌভ্রমণে নিয়ে গিয়েছিলেন। তিনি জানিয়েছেন, ওটি এখন একটি পরিত্যাক্ত মসজিদ। ওখানে নামাজের জামাত কিম্বা অন্য ধরনের ধর্মীয় কর্মকাণ্ড পরিচালনা হয় না। বন্যায় মসজিদটি ভেঙে যাওয়ায় অন্যত্র মসজিদের কর্মকাণ্ড পরিচালনা করা হচ্ছে।

মুনমুন আরও বলেন, আপনারা নাচের ভিডিওটি দেখে থাকলে খেয়াল করবেন-আমি নাচার সময় আমার পেছন দিকে সাইনবোর্ড ছিল। আমি যদি নাচের ওই সাইনবোর্ড দেখতাম তাহলে একজন ধর্মপ্রাণ মুসলমান হিসেবে আমি নাচ করতাম না।

মুনমুনের কাছে প্রশ্ন ছিল-নৌভ্রমণে গিয়ে নৌকায় না নেচে ওখানে নাচার কারণ কী ? তিনি বলেন, আমরা কয়েক ঘণ্টা নৌকা নিয়ে নদীতে ভ্রমণ করার পর আয়োজকরা ওখানে নৌকা থামিয়ে সবাইকে নিয়ে ওখানে যান। ওখানে গিয়ে দেখলাম আমাদের সবার খাওয়ার আয়োজন করা হয়েছে সেখানে। খাওয়া দাওয়ার পর মিল্টন ভাইসহ ওখানকার গণমান্য লোকজন আমাকে একটু নাচ করার অনুরোধ করেন। সবার অনুরোধে আমি হালকা নাচ করি।

অনেকেই বলছেন, আপনি উদ্ভট পোশাকে অশ্লীল নাচ করেছেন ? এই প্রসঙ্গে আপনার বক্তব্য কী ? মুনমুন বলেন, নিশ্চয়ই আপনিও ভিডিওটি দেখেছেন। এখন আপনিই বলুন, আমার পোশাক আর নাচ কি অশ্লীল ছিল। প্রকাশ্যে কেউ অশ্লীল নাচ করেন ? ওখানকার উপস্থিত সবার উপস্থিতিতে করা নাচকে এরা কীভাবে অশ্লীল বলছে, সেটা আমার বোধগম্য নয়। আর খারাপ কিছু হলে কি ওখানকার মানুষজনকে আয়োজকরা আমার নাচ মোবাইলে ভিডিও করতে দিতেন?!

মুনমুন ভাইরাল হওয়া নাচের ভিডিও প্রসঙ্গে আরও বলেন, আমি ধর্মে বিশ্বাসী একজন ধর্মপ্রাণ মুসলিম। কারও ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেওয়ার জন্যে এটা করিনি। যতটুকুই হয়েছে, সেটি আসলে অনাকাঙ্ক্ষিত একটু ভুল। তাই আমি সবার কাছে অনুরোধ করবো-এটা নিয়ে কোন ধর্মীয় গোষ্ঠীর মাঝে ধর্মীয় উন্মাদনা ছড়াবেন না প্লিজ। আমি দেশের জনপ্রিয় একজন চিত্রনায়িকা হিসেবে আপনাদের অনুরোধ করে বলছি-প্লিজ এটাকে বিকৃত ভাবে প্রচার করবেন না। সবশেষে বলবো-এটা দেখে যদি কারও ধর্মীয় অনুভূতিতে ন্যুনতম আঘাত লাগে, এর জন্যে আমি আন্তরিকভাবেই দুঃখিত। আশা করবো-এটাকে নিছক একটি অনাকাঙ্ক্ষিত ভুল হিসেবে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। সবাই ভালো থাকবেন।

চিত্রনায়িকা মুনমুন ১৯৯৬ সালে এহতেশাম পরিচালিত ‘মৌমাছি’ সিনেমার মাধ্যমে চলচ্চিত্রে যাত্রা শুরু করেন। এরপর একের পর এক সিনেমায় অভিনয় করেন। মাঝে অশ্লীলতার কারণে মাঝে দীর্ঘদিন চলচ্চিত্রাঙ্গন থেকে দূরে ছিলেন। বর্তমানে মুনমুন অভিনীত কয়েকটি সিনেমার শুটিং শেষ করে মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে। এছাড়াও বেশ কয়েকটি সিনেমার শুটিং বাকি রয়েছে।

মুনমুন অভিনীত উল্লেযোগ্য ছবির মধ্যে রয়েছে, ‘মৃত্যুর মুখে’, ‘রাজা’, ‘মরণ কামড়’, ‘রানী ডাকাত’, ‘তাণ্ডবলীলা’, ‘দুই নাগিন’, ‘স্ত্রীর মর্যাদা’, ‘পদ্মার প্রেম’ ‘আজকের সন্ত্রাসী’সহ অসংখ্য সুপারহিট সিনেমা।

ক্ষমা চেয়ে মুনমুনের লাইভ-

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

সর্বশেষ