Monday, September 28, 2020
- Advertisement -
Home ডাক্তার জামরুলের পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা

জামরুলের পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা

নিজেস্ব প্রতিবেদক:

পুষ্টি উপাদান-

আমেরিকান এগ্রিকালচারাল ডিপার্টমেন্টের তথ্যমতে, ১০০ গ্রাম জামরুলে নিম্নলিখিত পুষ্টি উপাদান থাকে-

পানি ৯৩.০০, প্রোটিন ০.৬, কার্বোহাইড্রেট ৫.৭, ডায়েটারি ফাইবার ১.৫, স্টার্চ ০.০, সুগার ০.০, চর্বি ০.৩, কোলেস্টেরল ০.৩ গ্রাম, ভিটামিন সি ১৫৬.০, ভিটামিন এ ২২.০, ভিটামিন বি১ ১০.০০, ভিটামিন বি৩ (নিয়াসিন) ৫৭.০, ক্যালসিয়াম ২৯, আয়রন ০.১, ম্যাগনেসিয়াম ৫.০, ফসফরাস ৮.০, পটাশিয়াম ১২৩.০, সোডিয়াম ০.০, সালফার ১৩.০ মিলিগ্রাম।

উপকারিতা-

১. ক্যানসারের ঝুঁকি কমায় : জামরুলে ভিটামিন সি ও ফ্লাবিনয়েড থাকায় ক্যানসার ও হৃদরোগের ক্ষেত্রে কোষের ধ্বংসকে রোধ করে। জামরুলে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট দেহের দূষিত পদার্থ দূর করে।

২. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় : ভিটামিন সি দেহের রোগ প্রতিরোধক্ষম শ্বেতকণিকা তৈরি করে। এটি ঠাণ্ডাজনিত রোগ থেকে রক্ষা করে।

৩. ভালো কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়ায় : জামরুলে থাকা নিয়াসিন কোলেস্টেরল তৈরিকে নিয়ন্ত্রণ করে। নিয়াসিন রক্তে ভালো এইচডিএল কোলেস্টেরল বাড়ায় এবং খারাপ ট্রাইগ্লিসারাইড কমায়।

৪. স্ট্রোকের ঝুঁকি হ্রাস করে : জামরুলে সোডিয়াম না থাকা এবং এইচডিএলের মাত্রা বেশি থাকায় এটি রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে ও স্ট্রোকের ঝুঁকি কমায়।

৫. হজমশক্তি বাড়ায় : নিয়মিত জামরুল খেলে পাকস্থলীর হজমশক্তি বাড়ে এবং শর্করা, চর্বি ও প্রোটিন জাতীয় খাবার সহজে হজম হয় এবং শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রণ হয়।

৬. কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে : জামরুলে থাকা পর্যাপ্ত পরিমাণে ফাইবার খাদ্য সংবহনতন্ত্রের সহায়তা করে এবং কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে।

৭. পেশির ব্যথা দূর করে : পটাশিয়াম থাকায় জামরুল পেশিকে শক্তিশালী করে এবং পেশির ব্যথা দূর করে।

৮. লিভারের রোগ সারায় : জামরুলে এক ধরনের হেপাটোপ্রটেক্টিভ উপাদান থাকে, যা অত্যন্ত সফলভাবে লিভার কোষ ধ্বংস থেকে রক্ষা করে।

৯. ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ : জামরুলে অ্যান্টিহাইপারগ্লিসেমিক উপাদান থাকে, যা রক্তের গ্লুকোজের মাত্রাকে নিয়ন্ত্রণ করে।

কাঁচা জামরুলের পাশাপাশি এটি জুস-আচার ও সালাদ হিসেবে জনপ্রিয়। তাই নিয়মিত জামরুল খান, সুস্থ থাকুন।

লেখক : অধ্যাপক, কীটতত্ত্ববিদ, গবেষক, প্রাণিবিদ্যা বিভাগ, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়

সুত্র/Ntv

- Advertisment -

সর্বশেষ